দোয়েলের আবির্ভাব...../সৌম্য তথাগত।।



বেকার ছেলের আবদ্ধ ঘর,

ফ্রাস্ট্রেসন-এর নিত্য বাহার,

“কিনু গোয়ালার” গলির মতই দুর্বিষহ।

লজ্জা ঘৃণায় শত শত মুখ,

গুটাচ্ছে হাত----- গভীর অসুখ,

চারদেওয়ালে ঘুরপাক খায় ব্যর্থ নাগর।


হঠাৎ করে জ্যোৎস্না রাতে

বেকার ছেলের অলিন্দতে,

ছোট্ট দোয়েল , বাঁধল বাসা এক কোটরে ।

রোজ দু-বেলা যাতায়াত তাঁর

কাকভোরেতে বিদায় আবার,

করুণ কোন অনাদিকালের মিষ্টি সুরে।


বেকারত্বের হিসেব-নিকেশ

সব মুছে যায় এক নিমেষে,

লোকসমাজের মিথ্যে ভয়ের চোখরাঙানি ;

খামখেয়ালের ভাবের ঘোরে

রাতবিরেতে হঠাৎ করে

দোয়েল, তুই কেন অমন গান শোনালি ?


বেকার ছেলের শুকনো হৃদয়

হাজার ক্ষত, রোগশয্যায়;

বাইরে থেকে দেখলে তুমি টের পাবেনা।

মৃত্যু ছিল নিত্যবেলা,

আত্মহনন --ব্যর্থ জ্বালা,

মানবজাতির করুণ কণ্ঠ বড্ড দামী।


ছোট্ট পাখি , তীক্ষ্ণ সুরে

রোদ এসেছে এ ঘর জুড়ে;

জুঁই ফুলেতে গন্ধে মোছায়

যা কুহকী।

“কিনু গোয়ালার” গলির মতই

অপার্থিব মানব ক্ষত'।

ভাগ্যিস!

তুই অমন সুরে গান শোনালি।।...২০ ভাদ্র, ১৪২৩...


1 comment